যুবলীগ সংবাদ :

শোকাবহ আগস্ট মাসব্যাপী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কর্মসূচী যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্ব্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের আলোচনা সভা
2014/05/16 03:49 PM

আজ ১৬ মে, ২০১৪ইং তারিখ শুক্রবার বেলা ৩ টায়  মহানগর নাট্য  মঞ্চে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্ব্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে  আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী । প্রধান অতিথি ছিলেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক  সফল স্বাস্থমন্ত্রী , বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ এর সাবেক চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল করিম সেলিম এম পি। । বিশেষ বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ সাধারন সম্পাদক মোঃহারুনুর রশীদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য- শহিদ সেরনিয়াবাদ, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, অধ্যাপক আমজাদ হোসেন, মোঃআনোয়ারুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক- মহিউদ্দিন আহম্মেদ মহি, মঞ্জুরুল আলম শাহীন, বাবু সুব্রত পাল , সাংগঠনিক সম্পাদক- সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ, মুহাম্মদ বদিউল আলম, ফজলুল হক আতিক, আসাদুল হক আসাদ,  দপ্তর সম্পাদক- কাজী আনিসুর রহমান,  সম্পাদক মন্ডলীর- সুভাষ চন্দ্র হাওলাদার, মিজানুল ইসলাম মিজু , উপ-সম্পাদক - শেখ বোরহান উদ্দিন বাবু , ইকবাল মাহমুদ বাবলু , স্যমল কুমার রায়,  সহ-সম্পাদক রবিউল ইসলাম, মোঃ মিজানুর রহমান,জহির উদ্দিন খসরু,নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী মিন্টু, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাইনুল হাসান খান নিখিল, সাধারণ সম্পাদক, মোঃ ইসমাইল হোসেন, দক্ষিণ যুবলীগ সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা সহ যুবলীগ কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতৃবৃন্দ।

           

             প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব এম পি বলেন, জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর হত্যা, ক্যু, র মধ্যদিয়ে  রাজনীতি শুরু করেন। তখন দেশে কেউ  গণতন্ত্রের কথা বলার সাহস পেতেন না। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৩০হাজার নেতা কর্মিকে সেদিন গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।,শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেন ৭৯ তে আমি তখন সংসদে দাড়িয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে দেশে ফিরিয়ে আনার কথা এবং বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার দাবি করি। নেত্রী ভারতে থাকা আবস্থায় আওয়ামীলীগ সভানেত্রী হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার পর আমি দিল্লিতে তার সঙ্গে দেখা করলাম। তিনি জীবনের ঝুঁকি জেনেও আমাদের প্রস্তাবে সম্মতি জ্ঞাপন করলেন। ১৯৮১ সালের ১৭ই মে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা যখন স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন বাংলাদেশে তখন প্রচুর ঝড় বইছিল। প্রচন্ড ঝড় উপেক্ষা করে লাখ লাখ মানুষ তখন রাস্তায় বেড়িয়ে এসেছিল জননেত্রীকে স্বাগত জানাতে। সেই থেকে তিনি গণতন্ত্র, মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন শুরু করেন। তারই ফলশ্রুতিতে আজকের এই ডিজিটাল বাংলাদেশ।

 

সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন-রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ১৯৮১ র ১৭ মে ঘাতকের রক্তস্নাত জাতির পিতার বুলেট বিদ্ধ পবিত্র বাংলার মাটিতে পা রাখেন। নেত্রী যখন বাংলাদেশে প্রত্যাবর্তন করেন তখন এদেশে গণতন্ত্র ছিল বুটের তলায় পিষ্ট। মানুষের মৌলিক অধিকার ছিল বন্দী। সারাদেশে চলছিলো ঘাতক হত্যাকারীদের উল্লাসের নৃত্য। তিনি বলেন- নেত্রী দেশে ফিরেই ডাক দিলেন গণতন্ত্রের, ডাক দিলেন মুক্তির, ডাক দিলেন জনগণের ক্ষমতায়ন। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার এই আলোকচিত্র গুলো কেবল একজন নেত্রীর ঘটনার চিত্রন নয় বরং বাঙালির গণতন্ত্র পূর্ণঃউদ্ধারের সংগ্রামের প্রামাণ্য দলিল। এই আলোকচিত্র হলো বাঙালির দ্বিতীয় জাগরণের রেখাচিত্র। যুবলীগ চেয়ারম্যান আরো বলেন- নির্বাচনের আগে বেগম জিয়া জঙ্গিবাদি,সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে র‌্যব,পুলিশ,সহ আইন সৃংখলা বাহিনী ও সাধারন মানুষের উপর পৈশাচিক পেট্রল বোমা হামলা চালিয়ে নির্বাচন বানচাল করার ব্যর্থ অপচেষ্টা চালিয়েছিল। তিনি বলেন- বেগম জিয়ার  বর্তমান রাজনীতি হল মিথ্যাচার, অপপ্রচার,ও হটকারি বক্তব্যের মাধ্যমে জনগনকে বিভ্রান্তি করা। দেশের আইন সৃংখলা বাহিনীর বিরুদ্ধে জনগনকে উস্কে দিয়ে বেগম খালেদা জিয়া দেশকে আবার অস্থিতিশীল করে দিতে চায়। তিনি বলেন অপপ্রচার মূলক “ব্লেম গেম” চালিয়ে সাধারণ মানুষকে র‌্যাবের মুখোমুখি দাঁর করানোর অপচেষ্টা বেগম জিয়ার আরেক জঙ্গিবাদী ষড়যন্ত্র। একটি ঘটনার সাথে আইন সৃংখলা বাহিনীর কেউ যদি জরিত থাকে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া ঢালাও ভাবে একটি বিষেশ বাহিনীকে দোসারোপ করে জনমনে ভীতির সঞ্চার করছে। যুবলীগ চেয়ারম্যান আরো বলেন যুবলীগের সর্বস্তরের নেতা কর্মীরা যেন জনগনের পাশে থেকে জনগনকে বিভ্রান্ত হওয়া থেকে রক্ষা করেন ।

 

যুলীগ সাধারন সম্পাদক হারুনুর রশীদ বলেন ৩৩ বছর আগের নেত্রীর ফিরে আসাটা বাংলাদেশের ঐতিহাসিক প্রয়োজন ছিল। যদি তিনি ফিরে না আসতেন তাহলে এই বাংলাদেশ আমরা ফিরে পেতাম না। তিনি ফিরে এসে অসামপ্রদায়িক, ধর্মনিরপেক্ষ দেশ গঠনের জন্য গণতন্ত্র, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম শুরু করলেন। তারই ফলশ্রুতিতে আমরা আজ একটি অসামপ্রদায়িক, গণতান্ত্রিক বাংলাদেশে বাস করছি।

 

অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিধি শেখ ফজলুল করিম সেলিম শিল্পকলা একাডেমির ৬ নং গ্যলারীতে জনগনের ক্ষমতায়নের প্রবক্তা আধুনিক গনতান্ত্রিক বাংলাদেশের রূপকার রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার “গনতন্ত্রের  জন্য সংগ্রাম” গ্রন্থের তিন দিন ব্যাপী চলা আলোকচিত্র  প্রদর্শণী পর্যবেক্ষন করেন।

 

বার্তাপ্রেরক

(কাজী আনিসুর রহমান)

দপ্তর সম্পাদক

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ।

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা