যুবলীগ সংবাদ :

যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
আইজিকে যুবলীগ চেয়ারম্যানের চিঠি
2015/09/13 02:03 PM

যুবলীগের কোনো নেতাকর্মী আইনশৃঙ্খলা বিরোধী কাজ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক ও স্বরাষ্ট্র সচিব ড. মো. মোজাম্মেল হক খানকে চিঠি দিয়েছেন সংগঠনটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক।
৯ সেপ্টেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এক অনুষ্ঠানে সারাদেশে চাঁদাবাজি ও মাদক বিক্রিসহ বিভিন্ন অপরাধের জন্য যুবলীগকে দায়ী করে ডিআইজি শফিকুল যে বক্তব্য দিয়েছিলেন তার প্রেক্ষিতে তিনি এই চিঠি দেন।
১০ সেপ্টেম্বর আইজিপির কাছে পাঠানো ওই চিঠিতে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেছেন, একজন দায়িত্বশীল উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার কাছ থেকে যেহেতু এমন মন্তব্য এসেছে, সেজন্য বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের পক্ষ থেকে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি যুবলীগের কারা এসব অপরাধ কর্মকা-ে জড়িত তাদের তালিকা আমাদের কাছে প্রদান করুন। সংগঠনের নিয়ম অনুযায়ী আমাদের তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ওমর ফারুক বলেন, কোনো ব্যক্তি যে সংগঠনই করুক না কেন আইন-শৃঙ্খলা বিরোধী বা সন্ত্রাসী কর্মকা-ে জড়িত হলে তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দায়িত্ব। তার সাংগঠনিক পরিচয় খোঁজা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাজ নয়।
গত বুধবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ লাইনে কমিউনিটি পুলিশিং ও সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিআইজি মো: শফিকুল ইসলাম বলেন, সারাদেশে চাঁদাবাজি আর মাদক বিক্রির কাজে ছাত্রলীগ-যুবলীগ জড়িত। তবে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স। তিনি বলার পর থেকেই অ্যাকশান শুরু হয়ে গেছে’।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, কমিউনিটি পুলিশিং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন, জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি ডা. বজলুর রহমান, প্রেস ক্লাব সভাপতি সৈয়দ মিজানুর রেজা, আওয়ামী লীগ নেত্রী নায়ার কবির, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মো. হারুনুর রশিদ, সদর উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান তাসলিমা সুলাতানা খানম নিশাত, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী মিনারা আলম, চেম্বার এন্ড কমার্স ইন্ড্রাস্টির সভাপতি মো. আজিজুল হক।
তবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা পরিষদ প্রশাসক, পৌর মেয়র, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের উল্লেখযোগ্য কাউকে অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি।
ডিআইজি শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘সারাদেশের মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সবচেয়ে বেশি নারী নির্যাতন মামলা হয়। তবে আইন করে নারী নির্যাতন বন্ধ করা যাবে না। এজন্য আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন’।

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা