যুবলীগ সংবাদ :

যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
বাংলাদেশ ভারত ঐতিহাসিক সীমান্ত চুক্তির কূটনৈতিক সাফল্যের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে শুক্রবার বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের র‍্যালী অনুষ্ঠিত।
2015/05/08 05:48 PM

৪১ বছরের অমীমাংসিত ও জটিল স্থল সীমান্ত সমস্যার চূড়ান্ত সমাধানের মধ্য দিয়ে ঐতিহাসিক রাখিবন্ধনে আবদ্ধ হলো বাংলাদেশ ও ভারত। প্রায় সাত দশক ধরে বঞ্চনা, কষ্ট আর ভোগান্তির অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার স্থল সীমান্ত চুক্তি অবশেষে বাস্তবে রূপ পেল।

বাংলাদেশ-ভারত স্থল সীমান্ত চুক্তি বিল ভারতের লোকসভায় অনুমোদন করায় রাজধানীতে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নেতা কর্মীরা প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করে ।

যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষীণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরি সম্রাটের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজার সঞ্চালনায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মিছিল পূর্ব জনসভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ ।

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, দীর্ঘ প্রায় ৪১ বছর পর ভারতের সাথে অমিমাংশিত সিমান্ত চুক্তি বাস্তবায়ন হয়েছে। ১৯৭৪ সালে ভারতের তৎকালিন প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধির সাথে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যে সিমান্ত চুক্তি হয়েছিল , ১৯৭৫ এর ১৫ আগষ্ট জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করার পর সে চুক্তিটি আর আলোর মুখ দেখেনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হসিনার সাহসী পদক্ষেপ ও বিচক্ষন রাষ্ট্র পরিচালনার কারনেই জাতির দির্ঘ দিনের আকাঙ্খিত এই মুজিব-ইন্দিরা চুক্তির বাস্তবায়ন হল। স্বাধীনতার সার্বোভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রক্ষার লড়াইয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হসিনা আজও জামাত ও বিএনপি জঙ্গীবাদিদের বিরুদ্ধে বিরামহীন সংগ্রাম করে যাচ্ছেন ।

''রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার জন্য বাংলাদেশ ধন্য'' শ্লোগানে মুখরিত আনন্দ মিছিলটি বঙ্গবন্ধু এভিনিউর প্রধান কার্যালয় থেকে বের হয়ে কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষীণ করে ।

ভারতের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভায় ঐতিহাসিক স্থল সীমান্ত বিল হওয়ার মাধ্যমে প্রায় সাত দশক ধরে বঞ্চনা, কষ্ট আর ভোগান্তির অবসান ঘটিয়ে অমীমাংসিত ও জটিল স্থল সীমান্ত সমস্যার চূড়ান্ত
সমাধান হল।

এর মাধ্যমে অবসান ঘটতে যাচ্ছে প্রায় সাত দশকের বঞ্চনা, কষ্ট আর ভোগান্তির। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিলটি পাস হয়।
 

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা