যুবলীগ সংবাদ :

শোকাবহ আগস্ট মাসব্যাপী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কর্মসূচী যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
বাঙালির প্রতিটি সংগ্রামে সংস্কৃতি ছিল বড় হাতিয়ার
2014/09/10 10:54 AM

এজেএফবির স্টার অ্যাওয়ার্ড উদ্বোধনকালে ওমর ফারুক চৌধুরী

দিলীপ সরকার : বাঙালি জাতির আÍপরিচয়ের উৎসের সন্ধানে সংস্কৃতিই হলো সবচেয়ে বড় বাহন। বাঙালির আÍ অধিকারের প্রতিটি সংগ্রামে সংস্কৃতি ছিল বড় হাতিয়ার। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালির মুক্তিসংগ্রামে সাংস্কৃতিক আন্দোলনের ধারাটি ছিল অত্যন্ত শক্তিশালী। আর আমরা দেখি, যখনই অগণতান্ত্রিক শক্তি, আসংবিধানিক স্বৈরাচার, সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আমাদের অধিকার হরণ করতে চায়, তখন তারা আঘাত করে আমাদের সংস্কৃতির ওপর। পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠী আমাদের অধিকার হরণের জন্য আমাদের সংস্কৃতির ওপর আঘাত হেনেছিল। রবীন্দ্র সংগীত নিষিদ্ধ করেছিল। জিয়াউর রহমান অবৈধ ক্ষমতা দখল করে মুক্তিযুদ্ধের সব গান বন্ধ করে দেন। বিজাতীয় সংস্কৃতিকে লালন করে যুব সমাজকে বিপথে পরিচালিত করেন, একনায়ক জিয়াউর রহমান। গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে সপ্তম আর্টিস্ট জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান উদ্বোধন কালে যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী এসব কথা বলেন। তাকে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এজেএফবির স্টার অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে বাবিসাস সভাপতি আবুল হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক মুজিব, বিশেষ অতিথি ছিলেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ হারুন, হোয়াট সিলভারের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক কামাল আহমেদ, অনুষ্ঠানের আহবায়ক আমাদের অর্থনীতির বার্তা সম্পাদক রিমন মাহফুজ, কমিটির সভাপতি ফারুক হোসেন মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক নিরব।

উদ্ধোধনী বক্তবে ওমর ফারুক চৌধুরী আরো বলেন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা জনগণের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে আমাদের হাজার বছরের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে লালন এবং বিকাশের উদ্যোগ নেন। যুব সমাজকে আলোরপথে ফিরিয়ে আনার জন্য সংস্কৃতিকে রাষ্ট্রনায়ক শেক হাসিনা অত্যন্ত গুরুত্ব প্রদান করছেন। বাংলা একাডেমিকে পৃষ্ঠপোষকতা, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের অর্থায়ন বৃদ্ধি, জাতীয় পর্যায়ে রবীন্দ্র-নজরুল উৎসব এসবই রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অবদান। আবহমান বাংলার সংস্কৃতির শক্তিকে পুনঃজাগরণ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অন্যতম লক্ষ্য। এটা তিনি করেছেন ‘জনগণের ক্ষমতায়ন’ রাজনৈতিক দর্শণের মাধ্যমে। যেখানে জনগণকে তিনি জাগ্রত করেছেন। তাদের গ্রহণ-বর্জনের সত্য-মিথ্যার প্রভেদ, সিদ্ধান্ত গ্রহণে ক্ষমতা দিয়েছেন। জনগণের ক্ষমতায়নের মাধ্যমেই আমাদের সংস্কৃতিকে বিকশিত করছেন রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা।

আমি মনে করি, সরকারি ও রাজনৈতিক উদ্যোগের পাশাপাশি আমাদের সংস্কৃতি বিকাশে এধরনের উদ্যোগ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই আজকের এই আয়োজনকে আমি স্বাগত জানাই। এই অনুষ্ঠানে যারা পুরুস্কৃত হবেন, এই স্বীকৃতি তাদের এদেশীয় সংস্কৃতি বিকাশে উৎসাহিত করবে বলে আমাদের বিশ্বাস। চলচ্চিত্র, টিভি নাটক, সঙ্গীত, নৃত্য ও সাংবাদিকতাসহ বিভিন্ন বিভাগে যারা অ্যাওয়ার্ড পাবেন তারা নিশ্চয়ই সফল মানুষ। তবে এই সাফল্য অর্জনের পেছনে আপনারা স্বপ্ন দেখেছেন। আর সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে নিরলস পরিশ্রম করেছেন, সদিচ্ছা, আÍবিশ্বাস এবং একনিষ্ঠার সাথে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে নির্দিষ্ট করেছেন। লক্ষ্যে পৌঁছাতে নানা প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করে সাফল্যের দোরগোড়ায় যাওয়ার আকাঙ্খাই অপনাদের সাফল্য এনে দিয়েছে। নিজের ভেতরের শক্তিকে আবিষ্কার করতে পেরেছেন তাই এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। জীবনে সফল হতে হলে নিজেকে চিনতে হবে। অর্থাৎ নিজেকে সঠিকভাবে জানতে পারলেই সাফল্যের পথে এগিয়ে চলা যায়। এটাই আপনারা করেছেন। প্রকৃতির সঙ্গে সমঝোতা করে বেঁচে থাকাই হচ্ছে জীবনের লক্ষ্য সেটাই প্রমাণ করেছেন।

আমরা বলি, আপনারা ভাগ্যবান, তবে ভাগ্য জীবন গড়ে দেয় না। কাজের মাধ্যমে ভাগ্য গড়ে নিতে হয়। সেই কাজটিই আপনারা করেছেন। অর্থাৎ ভাগ্য মানে পূর্ব প্রস্তুতি। এই পূর্ব প্রস্তুতি আপনাদের ছিল। লক্ষ্য অর্জন করেছেন। আপনাদের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটেছে। আজ আপনরা প্রতিষ্ঠিত। অর্থাৎ চেষ্টা করেছেন। যা আপনাদের কাছ থেকে আমরাও শিখলাম। অনুপ্রাণিত হলাম। জীবনকে নির্দিষ্ট করার পথ দেখালেন। নিরানব্বই ভাগ পরিশ্রম আর একভাগ অনুপ্রেরণার রুপই যে প্রতিভা তাই প্রমাণ করলেন। আপনাদের ধন্যবাদ। আমাদের সংস্কৃতি অত্যন্ত শক্তিশালী। আকাশ সংস্কৃতির ভিড়েও আমাদের সংস্কৃতি যে আপন মহিমায় উদ্ভাসিত আজকের অনুষ্ঠানে তারই এক প্রমাণ মাত্র। আমাদের সংস্কৃতির বিশ্বসভায় উদ্ভাসন সংস্কৃতি বিকাশের হাতিয়ার হোক জনগণের ক্ষমতায়ন এটাই হোক আজ আমাদের সফল মন্ত্র।

অনুষ্ঠানে এজেএফবির স্টার অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন চলচ্চিত্রে আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন সাদেক বাচ্চু ও সঙ্গীতে জানে আলম। অন্যান্য ক্ষেত্রে অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন চিত্রনায়ক নীরব, চিত্রনায়িকা মিস্টি জান্নাত, সঙ্গীতে বেলাল খান, নওমী, নদী, লিজা, সুমী শবনম, আর্শিয়ানা নওশীন, সুরাইয়া পাপড়ী, সাংবাদিকতায় ইত্তেফাকের বিনোদন সম্পাদক তানভীর তারেক, করতোয়ার বিনোদন সম্পাদক অভি মঈনুদ্দীন ও বাচসাস সহ-সভাপতি লিটন এরশাদ প্রমুখ।

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা