যুবলীগ সংবাদ :

শোকাবহ আগস্ট মাসব্যাপী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কর্মসূচী যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
সুন্দরীর ছদ্মবেশে রাক্ষসীর আবির্ভাবের নাম নতুন ধারার রাজনীতি: যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
2014/09/04 04:35 PM

সুন্দরীর ছদ্মবেশে রাক্ষসীর আবির্ভাবের নাম নতুন ধারার রাজনীতি: যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ইদানিং বলেন, এবার থেকে তিনি নতুন ধারার রাজনীতি শুরু করবেন। আমরা যুবসমাজ, তরুণসমাজ খুশি হয়েছিলাম। নতুন ধারার রাজনীতির কথা বলে তিনি বলেন ’৭১-এ আওয়ামী লীগ গণহত্যা করেছে। এটাই কী তাহলে নতুন ধারার রাজনীতি? ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে কেক কাটবেন, তাহলে নতুন ধারার রাজনীতি কি ভূয়া জন্মদিন পালন? জাতির শোকে উল্লাসের বিভৎসতা। এ সরকারের পতন হলে নাকি সব যুদ্ধাপরাধী মুক্তি পাবে। খাওয়ার দাওয়াত যে সুরে তিনি প্রত্যাখ্যান করেছেন, তাতে জাতি দেখলো বেগম জিয়ার রুচিবোধ এবং শিষ্টাচারের মাত্রা। এই হল বেগম জিয়ার নতুন ধারার রাজনীতি। নতুন ধারার রাজনীতি হলো হরতালে পত্রিকার গাড়ি, লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুর আর আগুন দেওয়া। নতুন ধারার রাজনীতি হলো মানুষকে জিম্মি করে দাবি আদায়ের হিংস্র রূপ। আর কী দেখলাম? পটকা বিপ্লব। নতুন ধারার রাজনীতি মানে প্রধান বিচারপতি, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের বাসা, বিচারপতির বাসায় পটকা, রাজনৈতিক নেতা, টেলিভিশন কার্যালয়ে, সংবাদপত্রের কার্যালয়ে বোমা সর্বত্র বোমাহামলা। আরও দেখলাম ‘ও’-লেভেল শিক্ষার্থীদের একবছর কেড়ে নেওয়ার পর এবার পালা জেএসসির ২০ লাখ শিক্ষার্থীর। আরও শুনলাম- গুজব রটিয়ে পাবনায় সাঁথিয়ার হিন্দুদের বাড়িঘর-দোকানপাটে ভাঙচুর আগুন।

বিরোধী দলের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, মনে রাখবেন- আরও কঠোর কর্মসূচি দিয়ে জনজীবনে বিরক্তিকর উপদ্রব বাড়াতে পারবেন, কিন্তু ঢিলেঢালা হরতাল চাঙ্গা করতে পারবেন না। কারণ তিক্ত বিরক্ত মানুষ ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে। বিএনপি-জামায়াতের অপরাজনীতির চর্চা, উগ্রবাদ, শব্দ বোমা নিক্ষেপ, মধ্য যুগে ফিরে যাওয়ার প্রবণতা, জনগণের কল্যাণে যুবসমাজ এসব রুখে দেবে। কারণ যুবসমাজ জানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের অধিকার ও জনগণের ক্ষমতায়নে বিশ্বাসী। আর বেগম জিয়া বিশ্বাস করেন ক্ষমতা আর ক্ষমতা।

খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের শিখিয়েছেন, পলিটিকস ইজ দি আর্ট অব কম্প্রোমাইজ। কম্প্রোমাইজের বাংলা আপস নয়, মীমাংসা, ফয়সালা, সমঝোতা, সংলাপ। আর সংলাপ মানে শ্রবণ ও শোনা। বেগম জিয়া কী শিখাচ্ছেন? যার বক্তব্য গণতন্ত্রে নেই। আছে বল প্রয়োগের গণতন্ত্র। শক্তি প্রদর্শনের গণতন্ত্র। এই গণতন্ত্র জনমনে স্বস্তি আনে না, ভীতি জাগায়। বেগম জিয়া শিখাচ্ছেন- মূর্খতা আর বেয়াদবি। শক্তি প্রদর্শন আর শব্দের বোমা নিক্ষেপণ। শেখ হাসিনার বক্তব্যে আছে, ভোট ও ভাতের অধিকার রক্ষার কথা। আমার ভোট আমি দেব, যাকে খুশি তাকে দেব। খালেদা জিয়ার লক্ষ্য অবৈধ শাসন, আর রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা চান জনগণের ক্ষমতায়ন। বেগম জিয়ার বক্তব্যে আছে, জনগণ কতক্ষণ সাসপেন্সের মধ্যে রাখা যায়, তার প্রতিযোগিতা। দা, বটি, খুন্তি-কুড়াল নিয়ে রাস্তায় নামার আহবান। সোয়া কোটি ভূয়া ভোটার, ১০ হুন্ডা আর ২০টা গুণ্ডা নির্বাচন ঠাণ্ডা। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা করেন প্রেস কনফারেন্স আর খালেদা জিয়া করেন প্রেস ব্রিফিং। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিতে পারেন না বলেই বেগম খালেদা জিয়া প্রেস কনফারেন্স করেন না। তাই আজ সিদ্ধান্ত নিতে হবে আগামী নির্বাচন মানে ক্ষমতার পালা বদলের নির্বাচন নয়। আগামী নির্বাচন, জনগণের অধিকার, জনগণের কল্যাণ, জনগণের ক্ষমতায়ন, জনগণের উন্নয়ন থাকবে কি থাকবে না সেই প্রশ্নেই আগামী নির্বাচন। আগামী নির্বাচন ইসলাম ধর্মকে বেইজ্জত না করার নির্বাচন। আগামী নির্বাচন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের ব্যক্তির অস্তিত্ব থাকবে কি থাকবে না, সেই নির্বাচন। আগমী নির্বাচন মানে উন্নয়ন, উদীয়মান, অগ্রযাত্রা, সম্ভাবনার বাসযোগ্য বাংলাদেশ থাকবে কিনা তার নির্বাচন।

আগামী নির্বাচন যাতে যুবসমাজ, তরুণসমাজ, নতুন প্রজন্মের স্বপ্ন দেখার নির্বাচন উল্লেখ করে ওমর ফারুক বলেন, যে স্বপ্ন রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা আমাদের দেখিয়েছেন। যে স্বপ্ন- ‘সমুদ্র জয়ের’ মধ্য দিয়ে আমরা দেখেছি। পবিত্র কোরআন শরিফে সূরা আর রাহমানের ২১নং আয়াতে পরিষ্কার উল্লেখ আছে ‘ইয়াখরুজু মিন হুমাল লু লুউ ওয়াল মারজান। অর্থ উক্ত সমুদ্রদ্বয় থেকে মণি-মুক্তারাজ উদগ্ত হয়। ব্রিটিশ পেট্রোলিয়ামের জরিপে দেখা যাচ্ছে, পৃথিবীর ৪০ শতাংশ সোনা, ৮০ শতাংশ হীরা, ৬২ শতাংশ তেল, ৩৫ শতাংশ গ্যাস, ৬০ শতাংশ ইউরেনিয়াম এই বঙ্গোপ সাগরের তলদেশে। এ অঞ্চলে এ ছাড়া প্রচুর প্রাকৃতিক সম্পদ টিন, দস্তা, ট্রাইটোনিয়াস, থিলেনিয়াস, বক্সাইড, কোবাল্ট ও নিকেলের মতো প্রয়োজনীয় পদার্থ আছে। সমুদ্রের বালিকণায় ইউরেনিয়াম পাওয়া গেছে। যা দিয়ে পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করা য়ায়। ব্রহ্মপুত্র নদের বালুকণায় ইউরেনিয়াম। মৌলভীবাজারের বড়লেখার হারগাছা ও সিলেটের জৈন্তাপুরে। আমরা গবেষণা করতে চাই, আহরণ করতে চাই, সমৃদ্ধ হতে চাই, সম্পদশালী হতে চাই। আসুন আজ একটা কাজ ‘বার-বার দরকার শেখ হাসিনা সরকার। আমার ভোট আমি দেব যাকে খুশি তাকে দেব বুঝেসুঝে নৌকায় দেব।’

 

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা