যুবলীগ সংবাদ :

যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
মার্চ ফর ডেমোক্রেসির নামে ১৮ দলীয় জোটের জ্বালাও-পোড়াও, ধ্বংসাত্মক কর্মসূচির বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় যুবলীগের বিক্ষো
12/30/2013 11:38 PM

গোপালগঞ্জ বাঙ্গালীর মুক্তির তীর্থভূমি, তাই খালেদা জিয়া পাল্টে ফেলতে চান গোপালগঞ্জের নাম............ ওমর ফারুক চৌধুরী

.
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, গোপালগঞ্জ, বাংলাদেশ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িয়ে থাকা তিনটি নাম। এখানে জন্ম নিয়েছেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। “বাংলাদেশ” নামক রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠায় “গোপালগঞ্জ” চির ভাস্বর একটি নাম। তাই গোপালগঞ্জের উপর খালেদা জিয়ার এতো রাগ।”

তিনি বলেন, গোপালগঞ্জ বাংগালীর তীর্থভূমি তাই খালেদা জিয়া গোপালগঞ্জের নাম পাল্টে ফেলতে চান। গোপালগঞ্জের নাম পাল্টে তিনি কি রাখতে চান? কান্দাহার, পাঞ্জাব না বেলুচিস্তান ? গোপালগঞ্জ নাম পাল্টানোর গোপন ইচ্ছা প্রকাশ হবার মধ্যে দিয়ে বেগম জিয়ার গোপন ইচ্ছা গুলো উকি দিলো। শুধু গোপালগঞ্জের নাম নয় খালেদা জিয়া মূলতঃ বাংলাদেশের নাম পাল্টে ফেলতে চান।বেগম জিয়া আজ বাঙ্গালী জাতির পরিচয়, অস্তীত্ব, ঠিকানা মুছে ফেলতে উদ্যত হয়েছেন। যে কোন মূল্যে বেগম জিয়ার এই ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে। 

আজ সকাল ১১ টায় যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত মিছিল পরবর্তী যুবলীগের এক সমাবেশে তিনি একথাগুলো বলেন।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, খালেদা জিয়ার তথাকথিত ‘গনতন্ত্রের অভিযাত্রা’ কর্মসূচীতে জনগণের সমর্থন না থাকায় তা সম্পুর্ণরুপে ব্যর্থ হয়েছে, এর মধ্য দিয়ে আবারো প্রমাণ হলো ‘যত গর্জায় ততো বর্ষায় না।’ খালেদা জিয়া বলেছিলেন, যে কোন মূল্যে কর্মসূচী সফল করা হবে, কিন্তু কার্যত রাজধানীতে কাকপক্ষী দেখা গেলেও বিএনপি নেতা কর্মীকে দেখা গেলো না। ২৯ ডিসেম্বর আবারো প্রমাণিত হলো জনগণের সম্পৃক্ততা ছাড়া ষড়যন্ত্র হয় কিন্তু আন্দোলন হয় না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সম্মৃদ্ধ বাংলাদেশের জনগণ ২৯ ডিসেম্বর খালেদা জিয়াকে প্রত্যাখান করেছেন । 

ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, বিএনপির অভিযোগ বেগম খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু তিনি যে গৃহবন্দী বা গ্রেপ্তার হননি ২৯ ডিসেম্বর বিকেলে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সামনে ব্রিফিংএর নামে এভাবে গালাগাল করার মাধ্যমে তার প্রমাণ পাওয়া গেলো। বিরোধী দলের নেতা একজন সম্মানিত ব্যক্তি। তাই তার কাছে জণগন সবসময় সত্য, শালীন এবং শিষ্টাচার সম্মত বক্তব্য আশা করেন। কিন্তু তিনি যে ভাষায় এবং যে স্বরে উপস্থিত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজনকে ধমকালেন, সেই ভাষাতে রাজতন্ত্রের যুগে ‘মহারানী’ রাও ধমকাতেন কিনা সেজন্য ইতিহাস ঘাটতে হবে। শুধু তাই নয় তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে যে ভাষায় সম্মোধন করলেন, তা ভদ্রসমাজে ব্যবহার্য নয়।

যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ হারুনুর রশীদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া একের পর এক ইস্যুবিহীন হরতাল, অবরোধ দিয়ে দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে ব্যাহত করতে চাইছেন। তার এই ষড়যন্ত্র যুবলীগ যে কোন মূল্যে প্রতিহত করবে। তিনি খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ষড়যন্ত্র বাদ দিয়ে সুস্থ রাজনীতি চর্চা করুন নাহলে বাংলাদেশের শান্তিপ্রিয় জনগণ আপনাকে ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ করবে।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদ সেরনিয়াবাত, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, মাহবুবুর রহমান হিরণ, মোঃ ফারুক হোসেন, আতাউর রহমান, অধ্যাপক আমজাদ হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার নিখিল গুহ, আনোয়ারুল ইসলাম যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, সুব্রত পাল, নাসরিন জাহান চৌধুরী শেফালী, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন, আমির হোসেন গাজী, ফজলুল হক আতিক, আসাদুল হক আসাদ, দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান, মহানগর যুবলীগ দক্ষিন সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট, সম্পাদক মন্ডলির সদস্য শহিদুল হক চৌধুরী রাসেল, সুভাষ চন্দ্র হাওলাদার, মোঃ মিজানুল ইসলাম মিজু, উপ-সম্পাদক, মোঃ ইসলাম, শেখ বোরহান উদ্দিন বাবু, মোঃ শামছুল আলম অনিক, কাজী মাজাহার, জাকিয়া সুলতানা শেফালী, সহ-সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ রবিউল আলম, রফিকুল ইসলাম, মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, তাজউদ্দিন আহম্মেদ, আফতাব খন্দকার রনি, রিয়াজ মিনা, আহম্মেদ রুবায়াত ইফতেখার, নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আলী মিন্টু, রওশন জামির রানা, মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, মোঃ শাহিনুজ্জামান শাহিন, জুয়েল মাহমুদ, মহনগর দক্ষিন ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা।

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা