যুবলীগ সংবাদ :

শোকাবহ আগস্ট মাসব্যাপী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কর্মসূচী যুবজাগরণ পাঠাগার ও বিক্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন বঙ্গমাতাকে নিয়ে যুবলীগের স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে : যুবলীগ চেয়ারম্যান জঙ্গিমুক্ত দেশ গড়তে যুবলীগের শপথ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলী বইমেলায় যুবলীগের নান্দনিক আয়োজন যুবলীগ চেয়ারম্যান সম্পাদিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির ৭৭ তম জন্মদিন পালিত। পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় যুবলীগের কমিটি গঠন মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি যুবলীগের শ্রদ্ধা মালয়েশিয়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার মিছিলে তারুণ্যের প্রেরণা আর সাহসের দিন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস---যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী
ঢাকা মহানগর দক্ষিন যুবলীগের বিক্ষোভ সমাবেশ
10/30/2013 6:36 PM

ফখরুদ্দিন মঈন ও ইয়াজ উদ্দিন আপনারই আবিষ্কার: খালেদা জিয়ার প্রতি শেখ ফজলুল করিম সেলিম

রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা জনগণের অধিকারে বিশ্বাসী আর বেগম জিয়া বিশ্বাস করেন তার ক্ষমতায় : মো. ওমর ফারুক চৌধুরী



বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়ার কঠোর সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেডিয়াম সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি। তিনি বিরোধীদলীয় নেতার উদ্দেশে বলেছেন, যেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থে সর্বদলীয় সরকারের প্রস্তাব দিয়েছেন সেখানে আপনি (খালেদা জিয়া) সেই প্রস্তাব না মেনে বোমাবাজি, নাশকতা ও ধ্বংসের পথ বেছে নিয়েছেন। আপনি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের যে প্রস্তাব করেছেন তা সংবিধান পরিপন্থী; যা এদেশের মানুষ কোনোদিনই মেনে নেবে না।’

তিনি গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের উদ্যোগে আজিমপুর বাসস্ট্যান্ডে বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতালের নামে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশে শেখ ফজলুল করিম সেলিম আরও বলেন, ‘ফখরুদ্দিন, মঈন উদ্দিন ও ইয়াজ উদ্দিন আপনারই আবিষ্কার। তিন মাসের জন্য তারা ক্ষমতায় এসে দুবছর রাজনৈতিক নেতা ও সাধারণ জনগণের ওপর অমানুষিক নির্যাতন করেছে। আপনার কাল্পনিক এ ফর্মুলাকে এদেশের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে। আপনি ও আপনার দোসর জামায়াত আঘাত করেছে সংবিধান, বিচার বিভাগ, মিডিয়া, নির্বাচন কমিশন এমনকী আওয়ামী লীগের নেতাদের বাসা, যুবলীগ চেয়ারম্যান ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতির বাসভবনেও বোমাহামলা করেছেন।’ খালেদা জিয়ার প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, ‘এখনও সময় আছে আপনি সাবধান হউন, নাশকতার পথ পরিহার করুন। অন্যথায় দেশের মানুষ আপনাকে গণধোলাই দিয়ে এদেশের মাটি থেকে উৎখাত করবে। বোমাহামলা চালিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে পারবেন না।’

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক চিন্তাধারার কথা উল্লেখ করে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের ক্ষমতায়নে বিশ্বাস করেন। জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা, কল্যাণ, উন্নয়নই তার রাজনীতির মূল লক্ষ্য। তিনি গণতন্ত্রে বিশ্বাসী ব্যক্তিও বটে। বাংলাদেশকে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে বিকশিত ও প্রতিষ্ঠিত করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি। আর বেগম খালেদা জিয়া চান অবৈধ শাসন, স্বৈরশাসন। এজন্য যেকোনও প্রকারে ক্ষমতায় যাওয়াই তার একমাত্র লক্ষ্য। বেগম জিয়া নিজের ক্ষমতায় বিশ্বাস করেন। তিনি মনে করেন, তিনি ক্ষমতায় যাওয়াই শেষ কথা। এজন্য জনগণকে জিম্মি করতেও তার কোনও আপত্তি নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সংবেদনশীল এবং সমঝোতায় বিশ্বাসী রাজনীতিবিদ। এজন্যই তিনি সকল দলের অংশগ্রহণে নির্বাচনের জন্য সর্বদলীয় সরকারের প্রস্তাব করেছেন। অন্যদিকে বেগম খালেদা জিয়া উগ্র, নৈরাজ্যবাদে বিশ্বাসী। এজন্যই তিনি আলোচনার পথে না গিয়ে সংঘাত ও নৈরাজ্যের হরতালের পথে এগুলেন। বেগম জিয়া বলেছিলেন, শনিবারের মধ্যে আলোচনার উদ্যোগ না নিলে রোববার থেকে হরতাল। সংঘাত এড়াতেই সমঝোতায় বিশ্বাসী, জনগণের কল্যাণে বিশ্বাসী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব বেদনা, দুঃখ যন্ত্রণা বুকে নিয়ে বেগম জিয়াকে ফোন করেছেন। আর সংঘাতে বিশ্বাসী বলেই বেগম খালেদা জিয়া হরতাল প্রত্যাহার করে আলোচনায় বসলেন না।

প্রধানমন্ত্রী জনগণের অনুভূতি হƒদয় দিয়ে অনুভব করেন উল্লেখ করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, এজন্যই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বারবার আলোচনা ও সমঝোতার পথে পা বাড়াচ্ছেন। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া জনগণের অনুভূতি অনুধাবন করতে পারেন না বলেই বারবার জ্বালাও-পোড়াও, নৈরাজ্য এবং মানুষ হত্যার পথ বেছে নেন।

সমাবেশের প্রধান বক্তা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ বিএনপি-জামায়াতের অবৈধ, অগণতান্ত্রিক হরতালের নামে দেশব্যাপী নাশকতা ও সাধারণ মানুষকে হত্যার তীব্র নিন্দা জানান।

ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিলে যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদের নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণ ঐক্যবদ্ধভাবে বিএনপি-জামায়াত জোটের সকল ষড়যন্ত্র ও নৈরাজ্য প্রতিহত করতে প্রস্তুত।

বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন এমপি, যুবলীগ দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, সহ-সভাপতি মাইনুদ্দিন রানা, হারুন-অর-রশিদ হারুন, যুগ্ম-সম্পাদক জাফর আহম্মেদ রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সরোয়ার হোসেন বাবু, মাকসুদুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক এমদাদুল হক এমদাদ প্রমুখ। সমাবেশ পরিচালনা করেন যুবলীগ দক্ষিণের সহ-সভাপতি আনোয়ার ইকবাল সান্টু।


রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার তথ্যকণিকা

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

চেয়ারম্যান ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

সাধারণ সম্পাদক ডেস্ক

পরিচিতি
ভাষণ
বার্তা

যুবলীগ প্রকাশনা